বৃষ্টির দরুণ রাস্তা ঘাঠ বন্ধ হাফলং, যাত্রী দুর্ভোগ চরমে

0
38

বরাক বাংলা নিউজ প্রতিবেদন: হাফলং,
   এক নাগাড়ে বৃষ্টির কারণে রাজ্যের অন্যতম পাহাড়ি জেলা ডিমা হাসাওয়ে ধস নেমে রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে পড়েছে। জেলার বিভিন্ন এলাকায় ধস নেমে পূর্ত সড়কে যানবাহন চলাচল স্তব্ধ হয়ে গেছে।
লামডিং-জাটিঙ্গা মহাসড়কের লংমা ও এন লেইকুরে সম্পূর্ণরূপে যাতায়াত পরিষেবা। শোচনীয় আকার ধারণ করেছে হাফলং-দিয়ুংমুখ-গুয়াহাটি সড়কপথ। রাস্তার উপর দিয়েও জল বইছে অনেক জায়গায়।এসব এলাকায় রাস্তার কোনও অস্তিত্ব নেই। যার দরুন আজও শিলচর-হাফলং যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।
       এদিকে লামডিং-জাটিঙ্গা মহাসড়কের লংমা ও এন লেইকুলে পাহাড় ধসে রাস্তা বন্ধ হয়ে পড়ায় গুয়াহাটি-হাফলংয়ের মধ্যে নৈশ বাস লামডিং-হাফলং বাস ও অসংখ্য গাড়ি রাস্তার দুপাশে আটকে পড়েছে। এতে যাত্রীরা প্রচণ্ড দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন। ধস নামার ফলে মহাসড়কের নির্মাণকাজে যুক্ত নির্মাণ সংস্থা লংমা ও এন লেইকুলে ড্রজার নিয়ে ধস সারানোর কাজে হাত দিলেও এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত রাস্তা সচল হয়ে উঠেনি। তবে মহাসড়কের কাজে নিয়োজিত নির্মাণ সংস্থা যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ধস সারাইয়ের কাজ করছে। রাতের মধ্যেই লামডিং-জাটিঙ্গা মহাসড়ক সচল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে, শিলচর-হাফলং ৫৪ নম্বর জাতীয় সড়কের হারাঙ্গাজাও জাটিঙ্গার মধ্যে পাহাড়ি নদীর জল রাস্তার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এবং ওখানে একটি সেতু ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ফলে আজ ওই সড়কপথে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।
   এদিকে বৃহস্পতিবার রাত থেকে উত্তরপূর্বের বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে ডিমা হাসাও জেলায় লাগাতার বৃষ্টির দরুন হাফলং কনভেন্ট রোড এবং ডিসগাওরাজিতে পাহাড় ধসে পূর্ত সড়ক বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি হাফলং অখণ্ড মন্দিরের পাশের লেকে মন্দিরের মাটির ধস পড়ে অনেক জায়গা তলিয়ে গেছে। এভাবে বৃষ্টি হলে মন্দিরের বৃহৎ অংশ জলে তলিয়ে যেতে পারে, এমন আশঙ্কা উড়িয়েও দেওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে রবিবার হাফলং শহরের কনভেন্ট রোড, দিবারাই পূর্ত সড়ক এবং ডিসগাওরাজি পূর্ত সড়কের ধস সরিয়ে সন্ধ্যায় সচল করে তুলেছেন পূর্তকর্মীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here