পুলওয়ামার জের: সিন্ধু জল বণ্টন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত ভারতের

0
150

সিন্ধু জল চুক্তির প্রেক্ষাপটে নদীর জল বন্ধ করে পাকিস্তানকে কতটা বিপাকে ফেলল ভারত, জানেন কি

ভারত এদিন বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেন্দ্র জানিয়েছে – তিন নদী – রবি, শতদ্রু ও বিপাশার জল আর পাকিস্তানকে দেওয়া হবে না। এতদিন চুক্তি অনুযায়ী সিন্ধু, চেনাব ও ঝিলমের জল পাকিস্তানের পাওয়ার কথা। তবে বাকী তিন নদীর জল ভারত এমনিই দিত পাকিস্তানকে। এবার তা আর দেওয়া হবে না। এই প্রেক্ষাপটে একনজরে জেনে নেওয়া যাক সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তি সম্পর্কে।

১৯৬০ সালে জল বণ্টন সংক্রান্ত একটি চুক্তি হয় ভারত ও পাকিস্তান সরকারের মধ্যে। এটি ‘সিন্ধু জল চুক্তি’ নামে পরিচিত। সেইসময়ে বিশ্বব্যাঙ্কের মধ্যস্থতায় দুই প্রতিবেশী দেশ জল নিয়ে মধ্যস্থতায় পৌঁছনোর চেষ্টা করেছিল। ১৯৬০ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর করাচিতে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু ও পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আয়ুব খানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তি অনুযায়ী, পূর্বের তিনটি নদী বিপাশা, ইরাবতী ও শতদ্রুর অধিকার থাকবে ভারতের কাছে। অন্যদিকে পশ্চিমের তিনটি নদী সিন্ধু, চেনাব ও ঝিলমের অধিকার থাকবে পাকিস্তানের কাছে। এই চুক্তি নিয়ে প্রথম থেকেই বিতর্ক ছিল এবং রয়েছে। কারণ সবকটি নদীর উৎপত্তিস্থলই ভারতীয় ভূখণ্ডে ও এদেশের অববাহিকায়। ফলে যেহেতু সবকটি নদী ভারতের মধ্য দিয়ে বয়ে পাকিস্তানে যাচ্ছে, তাই চুক্তি অনুযায়ী ভারত সেচ, জলবিদ্যুৎ উৎপাদন সহ সমস্ত কাজে এই জল ব্যবহার করতে পারবে বলে স্থির হয়। ভারত কোনওদিনও চুক্তির খেলাপ করেনি। উপরন্তু নিজেদের ভাগের জলও পাকিস্তানকে এতদিন দিয়ে এসেছে পূর্বতন সব সরকার। তবে উরি হামলার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথমবার মুখ খোলেন। স্পষ্ট জানান, সন্ত্রাসবাদ ও আলোচনা যেমন একসঙ্গে চলতে পারে না, তেমনই রক্ত ও নদীর জল কখনও একসঙ্গে বইতে পারে না। যার অর্থ সরাসরি জল বন্ধ করে দেওয়া নিয়ে পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন তিনি। আর এবার পুলওয়ামা হামলার পর সিদ্ধান্ত নিয়ে নিল কেন্দ্র সরকার। ভারতের ভাগের জল আর যাবে না পাকিস্তানে।

পাকিস্তানের পক্ষে জল একটি অত্যন্ত জরুরি ইস্যু। বারবার আলোচনার সময়ে ভারত যে জলভাগের ব্যাপারে অন্যায় করছে, ইসলামাবাদ সে কথা উল্লেখ করেছে। ভারত বারবারই বলে এসেছে, যে তারা ১৯৬০ সালে হওয়া চুক্তির সম্মান রক্ষা করে আসছে, কিন্তু ইসলামাবাদ এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ বিপরীত মত ধারণ করেছে।

এর আগে ২০১৬ সালের উরি হামলার পর, সিন্ধু জল কমিশনের মধ্যেকার বৈঠক বাতিল করে দেয় ভারত। বছরে দুবার এই বৈঠক বসার কথা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here