হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ করা জামাইয়ের হাতেই খুন হল গোটা পরিবার

0
42

ভালোবেসে নিজের ধর্ম এবং বাবা মাকে ত্যাগ করে বিয়ে করেছিল , কিন্তু বিয়ের মাত্র ৭ মাস পরেই তার মোহ ভঙ্গ হয়, যখন বুঝতে পারে যে তাকে প্ল্যান মাফিক ফাসানো হয়েছে, তখন সে চরম সিদ্ধান নিয়ে ফেলে।
ঘটনা উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদের কারেলি থানার। এখানে শ্বশুর , স্ত্রী এবং আগের পক্ষের কন্যা সন্তান মিলিয়ে মোট ৩ তিন জনকে হত্যা করলো মঃ উসমান নামের এক ব্যক্তি। পুলিশ জানায় যে উসমানের আসল নাম সৌরভ চৌরাসিয়া। সে ৭ মাস আগে সালমা বেগম(২৭) নামের মহিলার জালে ফেঁসে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে তাকে বিয়ে করে। ইসলাম গ্রহন করার কারণে তাকে নিজের পরিবারকেও ত্যাগ করতে হয়। সে জন্য বিয়ের পরথেকে সে শ্বশুর বাড়িতেই থাকতো।
হত্যার ঘটনা জানা যায় যখন সালমার বোন তাদের বাড়িতে আসে, সে তিনজনার মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে মঃ ইউনুস(৬৫)। সালমা বেগম (২৭) এবং ৬ বছরের আইনা মারজিয়ার নলিকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ এরপর মূল অভিযুক্ত হিসাবে মঃ উসমান ওরফে সৌরভকে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশের জেরার মুখে সে তিনটি হত্যার কথা স্বীকারও করে নেয়। সে পুলিশকে জানায় যে বিগত কিছু দিন ধরে সালমা তাকে তার দোকান বিক্রি করে তার নামে একটা জমি কিনে দেওয়ার দাবী করছিল। উসমান আরও জানায় যে বিয়ের পরেই সে তার দোকান সালমার নামে লিখে দিয়েছিল, কারণ বিয়ের আগেই সালমা এই দোকানটা তার নামে করানোর আবদার করেছিল বা বলা যায় যে দোকানের লোভেই তাকে বিয়ে করেছিল। উসমান জানায় যে সালমার আগে একবার বিয়ে হয়েছিল, এবং তার আগের স্বামীর তরফে আকটা কন্যা সন্তানও ছিল।
বিয়ের মাত্র ৭ মাস পরেই উসমান বুঝতে পারে যে তার সম্পত্তি হাতানোর জন্যই পরিকল্পনা করে তাকে ফাঁসানো হিয়েছে। এর পরেই সে পুরো পরিবারকে শেষ করার সিদ্ধান্ত নেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here